বিখ্যাত কফি হাউজ স্টার বাকস এর ইতিহাস

Posted by amarshopno88 on on Aug. 2, 2012, 10:10 p.m.  

মান্নাদের সেই বিখ্যাত গান- “ কফি হাউজের সেই আড্ডাটি আজ আর নেই , আজ আর নেই ‘’- আপনি নিশ্চয় শুনেছেন। কিন্তু অ্যামেরিকার বিখ্যাত কফি হাউজ স্টারবাকস এর নাম শুনেছেন কি? বিশ্বাস করুন আর নাই করুন ,অ্যামেরিকার বিখ্যাত কফি হাউজ স্টারবাকস এর প্রায় ১৯৫৫৫ টি স্টোর আছে পৃথিবীর ৫৮ টি দেশ জুড়ে। খোদ আমেরিকাতেই ১২৮১১ , কানাডায় ১২৪৮, জাপানে ৯৬৫, ইংল্যান্ডে ৭৬৬ , চীনে ৫৮০ এবং দক্ষিণ কোরিয়ায় ৪২০ টি শাখা আছে স্টার বাকসের। আর এই সব শাখায় কাজ করছে প্রায় ১,৪৯,০০০ কর্মী। বর্তমানে তারা drip brewed coffee, espresso বেসড গরম পানীয়, অন্যান্য ঠাণ্ডা ও গরম পানীয় , কফি বীন, সালাদ,স্ন্যাকস সহ কফি পান করার মগ , যন্ত্রপাতি বিক্রি করছে। তথ্যগুলি রূপকথার মত শুনালেও আসলেই তা কিন্তু সত্য। স্টারবাকস কি রাতারাতি এই সফলতা পেয়েছে? মোটেই না। আসলে স্টারবাকসের শুরুটা হয়েছিল কিভাবে, কখন , কোথায় ? কিভাবে তারা সারা বিশ্বে এত জনপ্রিয় হয়ে উঠলো? আসুন তা জানার চেষ্টা করি।
যাত্রা শুরুর গল্প:
১৯৭১ সালের ৩০ শে মার্চ তিন বন্ধু Jerry, Zev Siegel, and Gordon Bowker ওয়াশিংটনের সিয়াটলে স্টারবাকস এর যাত্রা শুরু করেন। তারা তাদেরই পরিচিত Alfred Peet এর দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে অতি উচ্চ মানের কফি বিন বিক্রি করত। এছাড়াও তারা কফি প্রস্তুত করার বিভিন্ন যন্ত্রপাতি বিক্রি করত। প্রথম দিকে তারা Alfred Peet এর কাছ থেকে এইসব কফি বিন ক্রয় করত। পরবর্তীতে সরাসরি উৎপাদন কারীর কাছ থেকে ক্রয় করে তা ভোক্তাদের কাছে বাজারজাত করতো। ১৯৮০ সালে Zev Siegel চলে যায়। স্টারবাকস কফি হাউজ: মঞ্চে প্রবেশ Howard Schultz এর:
১৯৮১ সালে Hammarplast নামে এক কোম্পানির জেনারেল ম্যানেজার ছিলেন Howard Schultz। তারা আসলে কফি প্রস্তুত করার বিভিন্ন যন্ত্রপাতি উৎপাদন করতো। ঐ বছর Howard Schultz লক্ষ্য করলেন যে , তারা সবচেয়ে বেশি অর্ডার পেয়েছেন স্টারবাকস থেকে। সেখানে আসলে কি ঘটছে , তা জানার আগ্রহে একদিন সকালবেলা স্টারবাকস এর অভিমুখে রওনা শুরু করলেন। দেখা করলেন স্টার বাকস এর মালিক Jerry Baldwin and Gordon Bowker এর সাথে। তারা Howard Schultz এর কর্ম পরিকল্পনা ও কৌশলের প্রতি মুগ্ধ হয়ে তাকে স্টারবকস এর হেড অব মার্কেটিং হিসেবে নিয়োগ দেয়। Howard Schultz লক্ষ্য করলেন যে, কিছু কর্মী ভোক্তাদের সাথে ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করে। তিনি প্রথমেই সেইসব কর্মী দেরকে ভোক্তাদের সাথে সবসময় বন্ধুসুলভ আচরণ করার নির্দেশ দেন। আইডিয়ার সন্ধান:
১৯৮৩ সালে Howard Schultz ইটালির মিলানে অনুষ্ঠিত এক প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণ করেন। ভ্রমন করার সময় তিনি লক্ষ্য করলেন যে, সারাদিন ইতালির কফি হাউজ এবং কফি বারগুলিতে মানুষের আনাগোনা লেগেই থাকে। ভোক্তারা ঘণ্টার পর ঘণ্টা আড্ডা দিচ্ছে । একে অপরের সাথে দেখা-সাক্ষাত ও আড্ডার মিলনস্থল হিসেবে যায়গা করে নিয়েছে কফি হাউজ ও কফি বারগুলি।অবসর পেলেই তারা যাচ্ছে কফি হাউজে। এইসব দেখে তিনি চিন্তা করলেন যে, আমেরিকার শহর গুলিও কফি হাউজ এর এক বিরাট সম্ভাবনাময় বাজার হিসেবে পরিণত হতে পারে। মতের অমিল:
আমেরিকাতে আসার পর তিনি স্টার বাকস এর মালিক Jerry Baldwin and Gordon Bowker এর সাথে তার আইডিয়াটি শেয়ার করলেন। তিনি বললেন – আমরা শুধুমাত্র কফি বীন বিক্রি না করে কফি প্রস্তুত করে গরম ও ঠাণ্ডা পানিয় হিসেবে বিক্রি করতে পারি। এর বিশাল বাজার আছে। কিন্তু Howard Schultz এর আইডিয়াটি তারা মোটেই পছন্দ করলেন না। নিজের আইডিয়া বাস্তবায়নের জন্য স্টারবাকস থেকে বের হয়ে গেলেন। Il Giornale এর যাত্রা শুরু:
Howard Schultz স্টার বাকস থেকে বের হয়ে Il Giornale (ইতালির এক বিখ্যাত দৈনিক পেপার ) নামে এক কফি শপ প্রতিষ্ঠা করলেন। এই কফি শপের মূলধন সংগ্রহ করার জন্য তিনি ২৪২ জন বিনিয়োগকারীর সাথে তার আইডিয়াটি শেয়ার করলেন। কিন্ত ২১৭ জন তার মধ্যে কোন আগ্রহই দেখালনা। কিন্তু তা সত্তেও তিনি তার আইডিয়াকে আকঁড়ে ধরে থাকলেন। পরবর্তীতে তিনি প্রায় ৩০ জন বিনিয়োগ কারীর কাছ থেকে প্রায় ১.৫ মিলিয়ন ডলার সংগ্রহ করেন। মজার ব্যাপার হচ্ছে বিল গেটস এর বাবাও একজন বিনিয়োগকারী ছিলেন। আইডিয়াটি ভালো হলেও প্রথমদিকে তারা বেশ কিছু ভুল করেছিলেন। কিছু ভোক্তা ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক হিসেবে অপেরা মিউজিক মোটেই পছন্দ করছিল না । কেউ কেউ বসার জন্য আসন চাচ্ছিল। কেউ কেউ ইতালিয়ান শব্দে লেখা মেনুগুলি বুঝতে পারছিলনা। তারা খুব দ্রুত তাদের ভুলগুলি সংশোধন করে ফেলে। এবং ৬ মাসের মধ্যে প্রায় ১০০০ জন ভোক্তা তাদের কফি শপ গুলিতে নিয়মিত আসা যাওয়া শুরু করল। স্টারবাকস ক্রয়:
অবশেষে ১৯৮৭ সালে Howard Schultz কিছু স্থানিয় বিনিয়োগকারিদের সাথে নিয়ে স্টারবাকস ক্রয় করলেন Jerry Baldwin and Gordon Bowker এর কাছ থেকে । এবং সেইসাথে মাত্র ৩৪ বছর বয়সে Howard Schultz স্টারবাকস এর president and CEO হিসেবে বনে গেলেন। তারপর থেকে আর পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি তাদের। সাফল্যর গোপন কথা:
Howard Schultz তার এই সাফল্যের কথা ব্যাখ্যা করতে গিয়ে বলেন –আমরা সব সময় ভোক্তাদের জন্য স্টারবাকস এ friendly environment করার চেষ্টা করেছি। সময়ের সাথে বদলানোর চেষ্টা করেছি। আর আমাদের নজর শুধুমাত্র ভোক্তাদের প্রতিও ছিলনা, কর্মীদের চাওয়া-পাওয়ার দিকেও নজর ছিল। এছাড়া আমরা সবসময় আমাদের নতুন কর্মীদের জন্য প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করি যাতে তারা ভোক্তাদেরকে আরও সুন্দরভাবে সেবা দিতে পারে। কর্মচারীদের কাজ করার জন্য এক সুন্দর পরিবেশের দেওয়ার চেষ্টা করি। এছাড়াও আমরা সবসময় আমাদের কর্মচারীদের স্বাস্থ্য এবং পরিষ্কার –পরিচ্ছন্নতার দিকে নজর রাখি। কর্মচারীদেরও কোম্পানির শেয়ার কিনার সুযোগ দিই। আমাদের লক্ষ্য ছিল –“ to build a company with a soul. ভাবতে খুবই ভালো লাগে যে আমরা তা করতে পেরেছি।

You are not a follower
Follow?
This post was billed under the category Lifestyle and Places
 Tags:  No tags added